বিদ্যুৎ বিভাগ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৯ মার্চ ২০১৯

মেঘনাঘাটে ৫৮৩ মেগাওয়ার্ট বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সামিট-জিই কনসোর্টিয়ামের চুক্তি স্বাক্ষর


প্রকাশন তারিখ : 2019-03-19

 

১৪/০৩/২০১৯ বিদ্যুৎ ভবনে নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে ৫৮৩ মেগাওয়ার্ট ক্ষমতার কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সামিট-জিই কনসোর্টিয়ামের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ডঃ তৌফিক- ই- ইলাহী চৌধুরী, বীর বিক্রম। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের( পিডিবি) সঙ্গে ২২ বছর মেয়াদী বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি (পিপিএ) ও ভূমি ইজারা চুক্তি (এলএলও), তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের সাথে গ্যাস সরবরাহ চুক্তি (জিএসএ), বিপিসির সঙ্গে জ্বালানি সরবরাহ চুক্তি (এফএসএ) এবং পিজিসিবির সঙ্গে বাস্তবায়ন চুক্তি (আইএ) সই করা হয়। সংশ্লিষ্ট কোম্পানির কর্মকর্তারা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। গ্যাসে চালানো হলে প্রতি ইউনিট ৩.৬৯৩২ সেন্ট, এলএনজি হলে ৬.৮১০৯ সেন্ট, এইচএসডি-এ ১৫.৭৫৬৩ সেন্ট মূল্য ধরা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ডঃ তৌফিক- ই- ইলাহী চৌধুরী, বীর বিক্রম বলেছেন, বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান্সমূহের আরো এগিয়ে আসা উচিৎ। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ খাত নিয়ে এখন আর কোন সমালোচনা নেই। বিদ্যুতের এই সাফল্যের পিছনে জ্বালানির অবদানকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা উচিৎ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস বলেছেন, বিদ্যুৎ খাতের আধুনিকায়নে বেসরকারি উদ্যোক্তারা বিশেষ অবদান রেখেছে। ২০১৮ সালে ৪ হাজার ২৬ মেগাওয়ার্ট নতুন বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রীডে যুক্ত হয়েছে, তাঁর ৫৬ শতাংশই এসেছে বেসরকারি খাত থেকে। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে জ্বালানি বিভাগের সচিব আবু হেনা রহমাতুল মুনিম, আমেরিকান রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর মিলার, পিডিবি চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ, সামিট গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ খান ও জিই গ্যাস পাওয়ারের চেয়ারম্যান জন রাইস বক্তব্য রাখেন।


Share with :

Facebook Facebook